September 20, 2020

শ্যামল রায়,
তাঁতিদের কাছ থেকে সরাসরি শাড়ি কিনতে শুরু করলো তন্তুজ। কালনা মহকুমা দুটি হাট তৈরি হয়েছে একটি হচ্ছে ধাত্রীগ্রাম অপরটি শ্রীরামপুর তাঁত হাট। তন্তুজ এর তরফ থেকে ধাত্রীগ্রাম এবং শ্রীরামপুর তাঁত হাট থেকে তাঁতিদের বুনানো শাড়ি কিনে নেওয়া হয়েছে। পূর্বস্থলী দক্ষিণ বিধানসভার বিধায়ক তথা বস্ত্র শিল্প দপ্তরের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ রবিবার জানিয়েছেন যে প্রতি বছর পুজোর আগে স্থানীয় তাঁতীদের বুনানো শাড়ি কিনে নেয়। করোনাভাইরাস এর জেরে এবছর একটু আগেই আমরা এই দুটি হাট থেকে  তন্তুজ এর তরফ থেকে শাড়ি কেনা শুরু করে দিয়েছি। স্বপন দেবনাথ আরও জানিয়েছেন যে ইতিমধ্যে আড়াইশো জন তাঁতির শাড়ি কেনা হয়ে গিয়েছে। কারণ কালনা মহকুমায় কৃষি নির্ভর হলেও অধিকাংশ মানুষ তাঁত শিল্পের উপর নির্ভরশীল। সমুদ্রগড় শ্রীরামপুর কালনা প্রভৃতি এলাকায় তাঁতিরা শাড়ি বুনে সংসার চালান এখানকার জামদানি শাড়ি বিভিন্ন রাজ্যের কাছে কদর রয়েছে। করোনা ভাইরাস এর জেরে তাঁতিরা অনেকেই তা দিতে পারছেন না যারা বলছেন তাদের ছাড়িয়ে গিয়েছে শাড়ি বিক্রি করতে পারছেন না কেউ কেউ বিক্রি করলে মহাজন খপ্পরে পড়েছেন যা কিনা কোন টাকায় ভালো ভালো শাড়ি কিনে নিচ্ছেন মহাজনরা। এর হাত থেকে রেহাই দিতে রাজ্যের মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ উদ্যোগ গ্রহণ করে এবং পুজোর আগেই তন্তুজ এর তরফ থেকে শাড়ি কেনা শুরু করে দেওয়া হয়েছে। এর ফলে তাঁতিরা উপকৃত হবেন। পুজোর আগে শাড়ি বুনে কিছুটা হলেও লভ্যাংশের মুখ দেখতে পাবেন।
এছাড়াও ঐসকল হাটে শিবির করে শাড়ি কেনা শুরু হয়েছে আগামীতেও শিবির করে শাড়ি কেনার ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে এবং জেলার বিভিন্ন জায়গায় শিবির করে  শাড়ি কেনা হবে জানিয়ে দিয়েছেন মন্ত্রী স্বপন দেবনাথ। এদিন উপস্থিত ছিলেন শিবিরের জেলা পরিষদের সহ-সভাপতি দেবু টুডু এবং তন্তুজ বোর্ডের ডিরেক্টরের সদস্য তুলসী সিংহ রায় কালনা 1 নম্বর পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শ্রাবণী পাল সহ একাধিক জনপ্রতিনিধি এবং তন্তুজ এর কর্মকর্তারা।