April 16, 2021

জুলফিকার আলি,

পুলিশকে বিজেপির পিছনে না লাগিয়ে যারা চুরি ডাকাতি করছে, দুষ্কৃতিকারী করছে,মানুষের সম্পদ চুরি করছে তৃণমূল নেতারা,তাদের পিছনে লাগান,তাহলে মানুষ শান্তিতে থাকবে,তা না হলে আইন-শৃংখলার সমস্যা হবে, শনিবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরা ১নং ব্লকের নেগুয়াতে দলীয় কর্মসূচিতে এসে এমনই মন্তব্য করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ দিলীপ ঘোষ,উল্লেখ্য গত বুধবার পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর থানার শিমুলিয়া অঞ্চলে বিজেপির বিক্ষোভ কর্মসূচি চলাকালীন তৃণমূল বিজেপি কর্মীদের ওপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ,এর ফলে বেশকিছু বিজেপি কর্মী সমর্থক গুরুতর আহত হয়, তারই প্রতিবাদে শুক্রবার প্রতিবাদ মিছিল করার সিদ্ধান্ত নেয় বিজেপি নেতৃত্ব, এবং সেই প্রতিবাদী মিছিলে অংশ নেওয়ার জন্য বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু ও সুমন ব্যানার্জি কে যাওয়ার সময় পথ আটকায় পুলিশ,তারই পরিপ্রেক্ষিতে এমনই মন্তব্য করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ,শনিবার এগরা ১নং ব্লকের নেগুয়াতে গৃহ সম্পর্ক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে প্রধানমন্ত্রীর চিঠি বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষের মধ্যে বিলি করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ,এরপরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে এমনটাই মন্তব্য করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সংসদ দিলীপ ঘোষ, এদিন তিনি বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন শুধু এই জেলার মধ্যে বিজেপি কর্মীদের আক্রান্তের খবর সীমাবদ্ধ নয়,রাজ্যের সমস্ত জায়গাতেই আক্রান্ত হচ্ছে বিজেপি কর্মী, নির্বাচন যত এগিয়ে আসছে তৃণমূল যত দুর্বল হচ্ছে বুঝতে পারছি ততই পুলিশ দিয়ে আটকানো হচ্ছে আমাদের, অন্যদিকে গত শুক্রবার বিজেপির রাজ্য সম্পাদক সায়ন্তন বসু কে পুলিশের দ্বারা আটকে দেওয়ার প্রতিবাদে অ্যাডিশনাল এসপির কাছে ডেপুটেশন দেয়ার জন্য জমায়েত হলে,পুলিশ চারজনকে আটক করে, সেই পরিপ্রেক্ষিতে দিলীপ ঘোষ বলেন কোন গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেই এখানে, গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত করার জন্য আমরা লড়াই করছি ওর জন্য আমাদের পথ আটকানো হচ্ছে, অন্যদিকে ঘূর্ণিঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের ক্ষতিপূরণ নিয়ে তিনি বলেন, যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা ক্ষতিপূরণ পাচ্ছে না, এটা শুরু হয়েছে রেশন ব্যবস্থা থেকে,যখন কেন্দ্রীয় সরকার রেশন ব্যবস্থা করে দেয় সাধারণ মানুষের জন্য, সেই রেসন ঠিকঠাক সাধারণ মানুষ, তাই নিয়ে প্রত্যেকটা রেশন দোকানে বিক্ষোভ চলেছে, রেশন দোকান বন্ধ করে দিতে হচ্ছে কিন্তু চুরি আর বন্ধ হচ্ছে না, অনেক তৃণমূল পার্টির নেতাদের সাসপেন্ড করা হয়েছে, তাও চুরি বন্ধ হচ্ছে না, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ধমক দিলেও বন্ধ হয়নি, তার কথা কেউ শুনছে না, স্বাভাবিকভাবে বুঝে নিয়েছে আমরা থাকবো না, যতদিন আছি লুটেপুটে নিই, এমনই মন্তব্য করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সংসদ দিলীপ ঘোষ, এই দিন এই দলীয় কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন কাঁথি সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অরূপ চক্রবর্তী, জেলার সাধারণ সম্পাদক অসীম মিশ্র, তাপস দোলুই সহ একাধিক জেলা বিজেপি নেতৃত্ব।

%d bloggers like this: