October 25, 2020

জুলফিকার আলি,

খেজুরিঃ* জমি বিবাদের জেরে এবার নগ্ন করে মারধর করে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ উঠল খোদ ছেলের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি থানার অন্তর্গত দেখালি এলাকায়। জানা গেছে অভিযুক্ত ছেলে দেব কুমার জানার সঙ্গে একটি জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল মা ছায়ারানী জানার সঙ্গে। আর সেই জমিতে বাড়ি তৈরি করতে গেলে মাকে নগ্ন করে মারধরের পাশাপাশি পুড়িয়ে মারার চেষ্টা অভিযোগ উঠল ছেলের বিরুদ্ধে। যদিও ঘটনার সময়ের ভিডিও প্রকাশ্যে এলেও সম্পূর্ণ অভিযোগ মানতে নারাজ অভিযুক্ত ছেলে। ছেলের দাবি সম্পূর্ণ অভিযোগ মিথ্যে। 

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি থানার অন্তর্গত দেখালির বাসিন্দা বিজয় কৃষ্ণ জানা। তার দ্বিতীয় পক্ষের স্ত্রী ছায়ারানী জানা। বিজয় কৃষ্ণের প্রথম পক্ষ দ্বিতীয় পক্ষের মোট সাতজন সন্তান রয়েছে। তাদের মধ্যে প্রথম পক্ষের ছেলে দেব কুমার জানার বিরুদ্ধে এই পুড়িয়ে মারার অভিযোগ উঠেছে। জানা গেছে, স্বামী বিজয় কৃষ্ণ জানা তিনি তার ছোট পক্ষের স্ত্রী ছায়ারানী জানাকে থাকার জন্য একটি জায়গা দেন।  আর সেই জায়গার ওপর বাড়ি তৈরি করতে গেলে বাধা হয়ে দাঁড়ায় প্রথম পক্ষের ছেলে দেব কুমার জানা। বুধবার সকালে যখন ওই জায়গার ওপর ছায়া রানী জানা ও তার ছোট ছেলে ওই মিলন জানা জায়গার ওপর বাড়ি তৈরি করতে যান তখনই দেব কুমার জানা সহ আরো বেশ কয়েকজন এসে তাদের ওপর চড়াও হয়। ঘটনায় মা ও ছেলে প্রতিবাদ করায় মাকে উলঙ্গ করে মারধরের পাশাপাশি গায়ে আগুন লাগিয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে ছেলের বিরুদ্ধে। এর পাশাপাশি ছোট ছেলেকে ও মারধর করে দেব কুমার জানা ও তার সঙ্গীরা। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় বাসিন্দারা দেখতে পেলে তারা মা ও ছেলেকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। এটিকে বড়পক্ষের ছেলে দেব কুমারের ভয়ে গ্রাম থেকে বের হতে পারছিলেন না মা ও ছেলে। যার ফলে থানা কিংবা পুলিশ, প্রশাসন কাউকে অভিযোগ জানাতে পারেননি তারা অন লাইন এ কাঁথি কোর্ট এ অভিযোগ জানায়। এরপর বৃহস্পতিবার গভীর রাতে দেব কুমারের নজর এড়িয়ে লুকিয়ে তমলুকে আসেন মা ও ছেলে। ইতিমধ্যে তারা তমলুকে জেলা পুলিশ সুপারের কাছে অভিযোগ জানানোর জন্য হাজির হয়েছেন। অসহায় মা জানান, “আমি ওখানে বাড়ি তৈরীর জন্য গিয়েছিলাম। বাড়ি তৈরি করতে দেবে না বলে দেব কুমার আমার গায়ে আগুন লাগিয়ে দেয়। ওর ভয়ে আমি বাড়ি থেকে বের হতে পারছিলাম না। তাই রাতের অন্ধকারে লুকিয়ে অভিযোগ জানাতে এসেছি।” 

এই ঘটনায়  স্থানীয় বাসিন্দা তথা তৃণমূলের বুথ সভাপতি সুফল চন্দ্র জানা বলেন, “মা ও ছেলের চিৎকার শুনতে পেয়ে আমরা ঘটনাস্থলে এসে ওদের উদ্ধার করি।  বড় ছেলে দেব কুমার জানা সহ আরো বেশ কয়েকজন মিলে ওদের মারধর করে”।