December 2, 2020

জ্যোতিপ্রকাশ মুখার্জি,


১ লা জুলাই হলো বাংলার দ্বিতীয় মুখ্যমন্ত্রী তথা রূপকার ডাঃ বিধান চন্দ্র রায়ের জন্মদিন ও মৃত্যুদিন। মুখ্যমন্ত্রী ও ডাক্তার হিসেবে তিনি ছিলেন সমান জনপ্রিয়। এই দিনটি স্মরণীয় করে রাখার জন্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জ্জী দিনটিকে ‘ডক্টর’স ডে’ হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত নেন। মূল লক্ষ্য করোনা যুদ্ধে সামিল স্হানীয় ডাক্তারদের সম্মান জানানো।
মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে সারা রাজ্যের সঙ্গে পূর্ব বর্ধমানের গুসকরা শহর তৃণমূল কংগ্রেস কমিটির পক্ষ থেকে ১ লা জুলাই দিনটি ‘ডক্টর’স ডে’ হিসেবে পালন করা হয়। এই উপলক্ষ্যে করোনা যুদ্ধে সামিল ডাঃ শ্যামল দাস, ডাঃ সুব্রত ঘোষ, ডাঃ প্রসেনজিত ভকত সহ গুসকরা প্রাথমিক স্বাস্হ্য কেন্দ্রের ডাঃ দেবতনু দত্ত ও ডাঃ সুপর্ণা ঘোষকে উত্তরীয় পড়িয়ে সম্মান জ্ঞাপন করা হয়।
উপস্থিত ছিলেন আউশগ্রাম বিধানসভার বিধায়ক অভেদানন্দ থান্ডার, শহর তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি কুশল মুখার্জী, শহর তৃণমূল যুব সভাপতি দেবব্রত শ্যাম, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের জেলা সাধারণ সম্পাদক গণেশ পাঁজা প্রমুখ।
বিধায়ক বলেন – করোনা ভীতিকে উপেক্ষা করে যেভাবে ইনারা চিকিৎসা করে গেছেন তা অতুলনীয়। তাদের জন্যই করোনার সময় স্হানীয় মানুষরা চিকিৎসা পরিষেবা থেকে বঞ্চিত হয়নি। আমার বিধানসভা এলাকার এইসব ডাক্তারদের দলের পক্ষ থেকে সম্মান জ্ঞাপনের সুযোগ পেয়ে আমরা গর্বিত।
অন্যদিকে কুশল বাবু বললেন- গুসকরার বুকে এই পাঁচজন ডাক্তারের অবদান কখনোই ভোলা যাবেনা। করোনার সময় যেভাবে উনারা অসহায় রুগীদের পরিষেবা দিয়ে গেছেন তাতে উনাদের সম্মান জানানোর সুযোগ পেয়ে আমরা গর্বিত। গুসকরাবাসী হিসেবে প্রতিটি স্বাস্হ্য কর্মীর কাছে আমরা কৃতজ্ঞ।