October 1, 2020

শ্যামল রায়


সোমবার ছিল পূর্বস্থলী ২ নম্বর ব্লকের জামালপুর বাবা বুরোরাজ মন্দিরে পুজোর দিন। পুজো দিতে বিভিন্ন জেলা থেকে গাড়ি করে মন্দিরে চলছেন। এদিন দেখা গেল মুখে মাস্ক ছাড়াই ঘেঁষাঘেঁষি করে চার চাকার গাড়িতে করে বুড়োরাজ মন্দিরে পুজো দিতে চলেছেন। এদিন পূর্বস্থলীর হেমাতপুর থেকে কালনা কাটোয়া রোড ধরে জামালপুর মন্দিরের দিকে যেতে দেখা গেল একটি ছোট যানবাহনের।
দর্শনার্থীরা জানালেন যে দীর্ঘ কয়েক মাস যাবত তারা পুজো দিতে যেতে পারেননি করোনার পরিস্থিতিতে। আনলক চালু হতেই মন্দির খোলার নির্দেশ দেয় সরকার ও মন্দির কর্তৃপক্ষ। তাই আগের মতো শুরু হয়ে গেছে মন্দিরে পুজো দেওয়ার পালা। এদিন দেখা গেল বিভিন্ন ধরনের বাদ্যযন্ত্র সহ বুড়োরাজ মন্দিরে পুজো দেওয়ার জন্য দর্শনার্থীদের ঢল নেমেছে। অথচ মুখে মাস্ক নেই এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় না রেখেই যানবাহন গাড়িতে যাতায়াত এবং পূজোর মন্দিরেও ভিড় দেখা গেল। প্রশাসন উদাসীন বলে অভিযোগ এলাকাবাসীর। জানা গিয়েছে মন্দির কর্তৃপক্ষ বারবার সকল দর্শনার্থীদের মাস্ক পরা দরকার এবং সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পুজো দেয়া উচিত বলে প্রচার করলেও কে শোনে কার কথা তবুও চলল বাবাবুরোরাজ মন্দিরে পুজো দেওয়ার পালা।