October 28, 2020

জুলফিকার আলি

হলদিয়া –পূর্ব মেদিনীপুরের নন্দীগ্রাম এ 200 জন তৃণমূল নেতাকে গত বৃহস্পতিবার শোকজ করার পর দুর্নীতির দায়ে গ্রাম প্রধানসহ 25 জনকে সাসপেন্ড করল তৃণমূল কংগ্রেস। তৃণমূল কংগ্রেসের শক্ত ঘাঁটি নন্দীগ্রাম। সেই নন্দীগ্রামে শুদ্ধিকরণের প্রথম দফায় ক্ষতিপূরণের দুর্নীতির দায়ে গ্রাম প্রধান এবং সদস্য সহ 25 জনকে সাসপেন্ড করল তৃণমূল কংগ্রেস। 200 জনের মধ্যে সবার কাছে আমফান ঝড়ে ক্ষতিপূরণের বাবদ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ ছিল। ক্ষতি না হওয়া সত্ত্বেও ক্ষতিপূরণের টাকা নেওয়ার অভিযোগ ছিল। তিন দিনের মধ্যে দুর্নীতি পরায়ন এর টাকা গুলি ফেরত দেওয়ার কথা ছিল। নন্দীগ্রামের শাসক দলের দুর্নীতি পরায়ন নেতাদের এবারের শুধু শোকজ করা হয়। শোকজ করার পাঁচ দিন কেটে যাওয়ার পর,সোমবার সাংবাদিক বৈঠক করে নন্দীগ্রামে ব্লক তৃণমূল সভাপতি মেঘনাথ পাল জানিয়েছেন, তাদের সেই চিঠি পাওয়ার পরে টাকা ফেরানোর হিড়িক পড়ে গেছে নন্দীগ্রামে। একের পর এক অঞ্চল পঞ্চায়েত প্রধান এবং সদস্য টাকা ফেরতের জন্য লাইন দিয়েছেন। ইতিমধ্যে 87 জন অভিযুক্ত টাকা ফেরত দিয়েছেন বলে জানা গেছে। সেইসব অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আরও কঠিন পদক্ষেপ নেবে রাজ্যের শাসক দল। এক পঞ্চায়েত প্রধান সহ মোট 25 জনকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এরমধ্যে পঞ্চায়েতের বিভিন্ন স্তরের নেতৃত্ব রয়েছে। নন্দীগ্রামে ব্লক সভাপতি মেঘনাথ পাল বলেন, নন্দীগ্রামের মানুষ তাদের প্রতি ক্ষুব্ধ হয়েছেন যারা দুর্নীতি করেছেন। তৃণমূল দলের ওপর ক্ষুব্ধ নেই । দলের কিছু নেতা এই কাণ্ড ঘটিয়েছে তাদের কোন রেহাই নেই। দ্রুততার সঙ্গে তাদের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। আরো জানান তৃণমূলে দুর্নীতিবাজদের কোন জায়গা নেই আর আগামী দিনেও থাকবে না। তবে দুর্নীতি পরায়ন নেতাদের বিরুদ্ধে কঠোর শাস্তি এরপরে কি নিতে চলেছে সেই দিকে তাকিয়ে আছে রাজনৈতিক মহল।