October 21, 2020

কাজল মিত্র

-চিত্তরঞ্জন এর সমস্ত রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ায়, নামকেশিয়া কালীমন্দিরের লোকেদের যাওয়া-আসার ভীষন অসুবিধা যার ফলে স্থানীয় কিছু মানুষের ক্ষোভে ফেটে পড়েন
যার ফলে নামকেসিয়া, কল্যানগ্রাম, জিতপুর,রামপুর সহ বহু গ্রামের শতাধিক মানুষ তিননম্বর গেটের মুখ্য রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন ।যারফলে চিত্তরঞ্জন ঢোকার মুখে তিননম্বর গেটের সামনে যাতায়াতের বাধা সৃষ্টি হয় এবং বহু মানুষ অসুবিধার মুখে পড়ে ।পরে চিত্তরঞ্জন রেল পুলিশ প্রশাসন গিয়ে তাদের আস্বাদন দেন এবং জিতপুর পঞ্চায়েত এর প্রধান তাপস চৌধুরীর নেতৃত্বে সকল মিলে চিত্তরঞ্জন জিএম প্রশাসনিক আধিকারিক এর কাছে একটি লিখিত ডেপুটেশন দেওয়া হয় ।এবিষয়ে তাপস চৌধুরী জানান যে জিতপুর সহ বহু গ্রামের মানুষ যাতায়াতের অসুবিধার কথা ভেবে আজ গ্রামের সকল মানুষ একত্রিত হয়ে এই পথ অবরোধ করেন ।তিনি বলেন নামকেসিয়া সহ জিতপুর, রামপুর, কল্যানগ্রাম,নামকেসিয়া গ্রামের লোকেদের অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। নামকেসিয়া গ্রামের সকলেই চিত্তরঞ্জন এর উপর নির্ভরশীল কারন আমাদের নামকেশিয়ার সকলকে বাজার হাট,স্কুল কলেজ, ডাক্তার খানা, হাসপাতাল সবটাই এই চিত্তরঞ্জন এর উপর নির্ভর শীল করতে হয় কারন সালানপুর ব্লকের প্রত্যন্ত এলাকার চিত্তরঞ্জন শহরের লাগোয়া এই গ্রাম,এই গ্রামে যাওয়ার একমাত্র মাধ্যম এই রাস্তা আর এই রাস্তা বন্ধ হবার ফলে 5 কিলোমিটার ঘুরে সকলকে চিত্তরঞ্জন যেতে হয় ।চিত্তরঞ্জন ও নামকেসিয়া মাঝের এই পকেট গেট লকডাউন এর ফলে তিনমাস বন্ধ করা হলেও লকডাউন উঠে গেলেও এখনও এই গেট খোলা হয়নি যার ফলে অসুবিধাই পড়েছে গ্রামের মানুষেরা।তিনি জানান আমরা আজ চিত্তরঞ্জন ডিজিএম এর কাছে ডেপুটেশন দিলাম তিনি জানালেন এবিষয়ে খুব শীঘ্রই ব্যাবস্থা নেওয়া হবে ।