October 1, 2020

সুরজ প্রসাদ

বর্ধমান শহরের ছাত্রী শরণ্যা ঘোষ উচ্চ-মাধ্যমিকে অসাধারণ ফল করেছে।সে পেয়েছে ৪৯৭। পূর্ব বর্ধমান জেলায় সে প্রথম হয়েছে।রাজ্যে সম্ভবত তৃতীয়। সে বাংলায়৯৭ ইংরেজিতে ৯০ অঙ্কে ১০০; কম্পিউটার এপ্লিকেশনে ১০০ পেয়েছে। বেস্ট অফ ফোর নিয়ম অনুসারে ফিজিক্স আর কেমিস্ট্রিতেও তার নাম্বার ১০০। এই ফলে সে খুশি হলেও পুরো সন্তুষ্ট নয়।পরীক্ষা দিয়ে শেষ দুটিতে নাম্বার পেলে সে আরো খুশি হত। শরণ্যার বাবা ডাঃ তরুণ ঘোষ শহরের নামকরা শিশু চিকিৎসক। মা শচীন্দ্রাণী ঘোষ। দিদি তন্বিষ্টা ঘোষ এন আর এস মেডিকেল কলেজের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্রী। বড় হয়ে সে কম্পিউটার প্রোগ্রামের বা ফিজিক্সের উচ্চশিক্ষার জন্য চেষ্টা করবে।নিজের কর্মক্ষেত্রে সে মানুষের জন্য কাজ করতে চায়। পড়ার বাইরে সে গল্পের বই পড়তে ভালবাসে।শরৎচন্দ্র শরদিন্দু সুনীল তার প্রিয় লেখক। তারা বাবা মা শিক্ষিকাদের ভূমিকা এই ফল করেতে তাকে সাহায্য করেছ্র বলে জানায় সে।আই সি এস সি তেও সে জেলায় সর্বোচ্চ র‍্যাঙ্ক করেছিল।এবারেও ধারাবাহিকতা বজায় রইল। এদিন জেলা স্কুল বোর্ড ও স্কুলের প্রধানশিক্ষিকা ও আর একজন শিক্ষিকা তাকে সম্বর্ধনা জানাতে বাড়িতে আসেন।তার হাতে মুখ্যমন্ত্রীর শুভেচছাবার্তা তুলে দেন শিক্ষাবিভাগের প্রতিনিধিরা।