September 29, 2020

জ্যোতিপ্রকাশ মুখার্জি


২১ শে জুলাই দিনটি মমতা ব্যানার্জ্জীর কাছে একটা আবেগ।গত ২৮ বছর ধরে তিনি এই দিনটি ‘শহীদ দিবস’ হিসেবে পালন করে আসছেন। লক্ষ লক্ষ মানুষের ভিড়ে ধর্মতলা চত্বর হয়ে ওঠে উত্তাল। কিন্তু এবার করোনা অতিমারি জনিত কারণে রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তের সঙ্গে পূর্ব বর্ধমান জেলার বিভিন্ন এলাকায় অন্যভাবে পালিত হলো ‘শহীদ দিবস’।
জেলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক প্রসেনজিৎ দাসের উদ্যোগে বর্ধমান পৌরসভার ৩৩ নং ওয়ার্ডে পালিত হলো ‘শহীদ দিবস’। সেখানে ‘শহীদ বেদী’-তে মাল্যদান করেন প্রসেনজিৎ দাস সহ স্হানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। এখানে উপস্থিত ছিলেন শহর সভাপতি অরূপ দাস।
গলসী ১ নং ব্লকের বিভিন্ন বুথে পতাকা উত্তোলনের মাধ্যমে শহীদ তর্পণ করেন তৃণমূল কর্মীরা।এখানে বিভিন্ন বুথে উপস্থিত ছিলেন ব্লক সভাপতি জাকির হোসেন ও পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি অনুপ চ্যাটার্জ্জী। দলের পক্ষ থেকে বিভিন্ন বুথে উপস্থিত তৃণমূল কর্মীদের স্যানিটাইজার ও মাস্ক দেওয়া হয়।
শহর তৃণমূল যুব সভাপতি দেবব্রত শ্যামকে সঙ্গী করে গুসকরা পৌরসভার বিভিন্ন বুথে দলীয় পতাকা উত্তোলন করে শহীদ তর্পণ করলেন গুসকরা শহর সভাপতি কুশল মুখার্জ্জী।
এছাড়া বিভিন্ন এলাকায় দলীয় কর্মীদের মধ্যে মমতা ব্যানার্জ্জীর ‘ভার্চুয়াল’ ভাষণ প্রচারের ব্যবস্হা করা হয়।