November 30, 2020

মোল্লা জসিমউদ্দিন (টিপু)

প্রায় চারমাস ধরে চলছে গোটা দেশজুড়ে করোনা স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখতে লকডাউন।এই পরিস্থিতিতে সবথেকে আর্থিক কষ্টর মধ্যে রয়েছে গরীব মানুষজন। রুজিরোজগার বিপন্ন, তাই কি খাবে দুবেলা?এই প্রশ্ন থাকে সবসময়। লকডাউনের প্রথম পর্যায়ে বিভিন্ন সমাজসেবী সংস্থা, অরাজনৈতিক সংগঠন গুলি সাধ্যমতো পাশে দাঁড়িয়েছে।  সময়ের চোরাস্রোতে সেই ত্রাণ বিলির উদ্যোগ বর্তমানে সেভাবে নেই। তবে ‘জমিয়ত উলেমা হিন্দ’ ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে গোটা দেশের পাশে দফায় দফায় দাঁড়িয়েছে এবংং দাঁড়াচ্ছে। এই বাংলার জমিয়ত উলেমা হিন্দের রাজ্য সভাপতি সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরী জানিয়েছেন – ” আমরা ভেদাভেদ ভূলে অসহায়দের পাশে থেকেছি, এটা আমাদের কর্তব্য বলতে পারেন “। জানা গেছে, জমিয়ত উলেমা হিন্দের পরিচালনায়   কয়েক কোটি টাকার ত্রাণ পৌঁছেছে গরীব মানুষদের ঘরে ঘরে। বুধবার সকালে মঙ্গলকোটের নুতনহাট সংলগ্ন পদিমপুর গ্রামে জমিয়ত উলেমা হিন্দের ব্লক সম্পাদক হাফেজ সাবির আলির বাড়ীর সামনে চললো ত্রাণ বিলি। সন্ন্যাসী থেকে মৌলবী । আদিবাসী থেকে  বাগদি প্রায় দুশো মানুষজন হাজির করোনার ত্রাণ নিতে। মঙ্গলকোটের চাণক, বড়াগড়, বড়বাজার, পদিমপুর সহ চল্লিশের বেশি গ্রাম থেকে এলাকাবাসীরা এই ত্রাণ নিয়ে যান। ১৫ কেজি চাল, ২ কেজি মুসুরিডাল, ১ কেজি নুন, বিস্কুটের প্যাকেট, খেজুর সহ আটরকম ত্রাণ সামগ্রী ছিল এদিন।   ইতিপূর্বে মঙ্গলকোট হাই মাদ্রাসায় তিনশোর অধিক দুস্থ অসহায়দের ত্রাণ দিয়েছে জমিয়ত উলেমা হিন্দের মঙ্গলকোট ব্লক কমিটি বলে জানিয়েছেন সম্পাদক হাফেজ সাবির আলি  ।