October 22, 2020

খায়রুল আনাম – সম্পাদক ((বীরভূমের কথা)

বীরভূমের বোলপুর থানার রজতপুর
গ্রামের অনিমা সরকার নামে এক কলেজ ছাত্রীর স্নানদৃশ্যের ছবি তুলে তা প্রকাশ করে দেওয়ার ভয় দেখিয়ে স্থানীয় এক রাজমিস্ত্রী শেখ হাফিজুল ওই ছাত্রীর সাথে বার বার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে বাধ্য করে। তার বাড়ি বোলপুরের রজতপুর গ্রামে। পরে ওই ছাত্রীটি ২০১৭ সালের ৯ ডিসেম্বর গায়ে আগুন দেয়। বোলপুর মহকুমা হাসপাতাল হয়ে তাকে বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে কলকাতা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে ১৮ ডিসেম্বর সে মারা যায়। পুলিশ গ্রেফতার করে শেখ হাফিজুলকে। ২৭ জুলাই বোলপুরের অতিরিক্ত সেশন জজ কল্লোল বসু অভিযুক্তকে দোষী সাব্যস্ত করে ৫ বছর সশ্রম কারাদণ্ড, এক হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরও তিন মাস কারাবাসের আদেশ দিলেন। ৭ জন চিকিৎসক-সহ মোট ১৫ জন এই মামলায় সাক্ষী দেন। তবে, যে মোবাইল ফোনটিতে অভিযুক্ত ছাত্রীটির ছবি তুলেছিল তা পুলিশ আদালতে জমা দিতে পারেনি। সরকারি আইনজীবী তপন দাস জানিয়েছেন, মোবাইল ফোনটি আদালতে পেশ করা গেলে অভিযুক্তের সাজা আরও বেশি হতো।