September 28, 2020

ওয়াসিম বারি

অহিংস আন্দোলনের পথে হাঁটছে বিজেপি : বারাসাত থানা ঘেরাও কর্মসূচি ঘিরে পর্বতের মূষিকপ্রসব

বারাসাত।। গান্ধীবাদী অহিংস আন্দোলনের পথে হাটতে চাইছে বারাসাত সাংগঠনিক জেলার বিজেপি নেতৃত্ব। তাঁরা আর বিজেপির প্রবাদ পুরুষদের নাম করছেন না। বারাসাতের বিজেপি নেতাদের মুখে এখন গান্ধী নেহেরুর নাম। ফলে বিজেপির বারাসাত থানা ঘেরাও কর্মসূচি যেমন পর্বতের মূষিক প্রসব করছে ঠিক তেমনই বারাসাত সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি শঙ্কর দাস সহ বিজেপির স্থানীয় নেতৃত্বের বক্তব্য অহিংস আন্দোলনের বার্তা দিচ্ছে।

রবিবার বারাসাত সাংগঠনিক জেলার বারাসাত থানা ঘেরাও কর্মসূচি ছিল। ছিল পুলিশের ত্রিস্তর বলয়। কোনো ব্যারিকেড না ভাঙার চেষ্টা করে পুলিশের সাথে কথা বলে ধীরে ধীরে বারাসাত থানার দিকে স্মারকলিপি পেশ করতে যায় বারাসাত বিজেপি সাংগঠনিক জেলার সহ সভাপতি শঙ্কর দাসের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্যর বিজেপি দল। কর্মীদের যাবতীয় উন্মাদনা ইতি হয়ে যায় দশ মিনিটের মধ্যে।

স্মারকলিপি জমা দিয়ে যা বললেন বিজেপি জেলা সভাপতি শংকর দাস তা অভূতপূর্ব। তিনি জানান অহিংস আন্দোলন করছে বিজেপি। কারণ ভারতের মাটি অহিংসার মাটি এবংভারত গান্ধী, নেহেরু ও বিবেকানন্দর দেশ। কোথাও তিনি উচ্চারণ করেন নি শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জি, মোদি, অমিত শা দিলীপ ঘোষের নাম। বিজেপির প্রতিবাদ সভায় নেতৃত্বে মুখে শোনা গেল গান্ধী, নেহেরুর, ও বিবেকান্দর নাম। বিজেপি নেতৃত্বের দাবি গান্ধীর অহিংস আন্দোলনের পথে হাটতে চাইছে বারাসাত সাংগঠনিক জেলার বিজেপি নেতৃত্ব। যেখানে রাজ্য জুড়ে বিজেপি কঠিন আন্দোলন করছেন সেখানে দাঁড়িয়ে এমন অহিংস আন্দোলনর কথা শুনে হতবাক বিজেপি কর্মীরা। নেতৃত্বের এমন বার্তায় হতচকিত হওয়া ছাড়া তাঁদের কিছু করার ছিল না। অর্থাৎ বিজেপির বারাসাত থানা ঘেরাও কর্মসূচির ফল পর্বতের মূষিকপ্রসব।।

রবিবার পুলিশি জুলুম, বিজেপি কর্মীদের মিথ্যা মামলায় ফাঁসানো সহ একাধিক অন্যায়ের প্রতিবাদে বিজেপি কর্মীদের বারাসাত থানা ঘেরাও কর্মসূচি ছিল। বারাসাত পুলিশ জেলার পুলিশ সর্বশক্তি দিয়ে তা প্রতিহত করার চেষ্টা চালায়। পুলিশ ত্রিস্তর বলয় করে। মিছিল শুরু করে হরিতলায় আসতেই পুলিশ তাদের আটকে দেয়। দোকান পাট বন্ধ হয়ে যায়। এদৎ সত্ত্বেও এদিন বিজেপি প্রথমেই থমকে যায়। দুর্বল কর্মসূচি শেষ করে ৫ জনের প্রতিনিধি দল স্মারক লিপি জমা দেয়।