September 28, 2020

এবার হাইকোর্টে বিশ্বভারতী মামলায় অনুব্রত কে পক্ষভুক্ত করার আবেদন  

মোল্লা জসিমউদ্দিন


     সোমবার দুপুরে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি টি বি রাধাকৃষ্ণনের ডিভিশন বেঞ্চে নথিভুক্ত হলো বিশ্বভারতী কান্ডের সিবিআই তদন্ত চেয়ে মামলা। সম্ভবত শুক্রবার এই মামলার শুনানি হতে পারে৷ মামলাকারী আইনজীবী রমাপ্রসাদ সরকার এদিন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে সম্প্রতি বীরভূমের বোলপুরে বিশ্বভারতীর পাঁচিল দেওয়া কে কেন্দ্র করে হিংস্বাত্মক ঘটনাগুলি তুলে ধরেন তথ্য ছবি সহকারে।  এই মামলায় বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়, কেন্দ্রীয় সরকারের পাশাপাশি বীরভূম জেলা তৃনমূল সভাপতি অনুব্রত মন্ডল, ঘটনায় অভিযুক্ত বিধায়ক নরেশ বাউড়ি কে পক্ষভুক্ত করা হয়েছে। ঘটনায় সিবিআই তদন্তর পাশাপাশি বিশ্বভারতীর নিরাপত্তা প্রদানে সিআইএসএফ কে দায়িত্ব দেওয়ার আবেদন রয়েছে এই মামলায়। উচ্চ আদালতের তদারকিতে নজরদারি কমিটি গড়ে একমাসের মধ্যে রিপোর্ট তুলে ধরার আবেদন আছে। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে উচ্চ আদালতের তদারকিতে নজরদারি কমিটির উদাহরণ রয়েছ৷ স্থানীয় পুলিশের ভুমিকা নিয়ে তীব্র প্রশ্ন তোলা হয়েছে। যদিও বীরভূম জেলা পুলিশ এই ঘটনার কয়েকদিনেই চারজন পুলিশ কর্মী কে ক্লোজ করেছে। এমনকি বিশ্বভারতীর আশ্রমের আবাসিকদের মনোবল বাড়াতে এবং ঘটনার তদন্তে পুলিশ সুপার রবিবার সাইকেল ভ্রমণে বিশ্বভারতী ঘুরেওছেন  । গত ১৭ আগস্ট বোলপুরের বিশ্বভারতীর পৌষমেলার মাঠে সীমানা প্রাচীর নির্মাণ নিয়ে রণক্ষেত্র হয়ে উঠে গোটা শান্তিনিকেতন সহ বোলপুর শহর। অভিযোগ, সুপরিকল্পিতভাবে বোলপুর সংলগ্ন গ্রাম গুলি থেকে লোক জোগার করে জেসিবি মেশিন দিয়ে ভাঙচুর করা হয় ঘটনাস্থল। এমনকি সিমেন্ট – রড – ইটের মত ইমারতি দ্রব লুট করা হয় বলে অভিযোগ। উল্লেখ্য, এই বিশ্বভারতীর আচার্য হলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। তাই বিষয়টি সর্বভারতীয়স্তরে পৌঁছে যায়। রাস্ট্রপ্রতি মনোনিত ব্যক্তি তথা জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত  ‘এক টাকার ডাক্তারবাবু’ সুশোভন বাবুর আবক্ষ মূর্তিতে কালিমালিপ্ত করার ঘটনাও ঘটে বিশ্বভারতীর পাঁচিল দেওয়ার হিংসাত্মক ঘটনার পরেও।   এখনও চাপা উত্তেজনা রয়েছে বোলপুর শহর জুড়ে। রাজনৈতিক ভাবে বিজেপি এই ঘটনা নিয়ে রাজ্যপালের দরবারের পাশাপাশি রাজ্যব্যাপি  বিক্ষোভ প্রদর্শন কর্মসূচি এখনও চালাচ্ছে। ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে সোমবার দুপুরে কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলা নথিভুক্ত হয় সিবিআই তদন্ত দাবিতে। আগামী শুক্রবার এই মামলার শুনানি হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। এখন দেখার কলকাতা হাইকোর্ট বিশ্বভারতী কান্ডে কি নির্দেশ দেয়?