July 31, 2021

সেখ সামসুদ্দিন

শিক্ষার অন্যতম উদ্দেশ্য হচ্ছে আত্মার উৎকর্ষ সাধন। শুধু ডিগ্রি অর্জনের শিক্ষা প্রকৃত শিক্ষা নয়। আজকের এই মেধাবী ছাত্র-ছাত্রীরা আলোকিত, উৎকর্ষিত মানুষ হয়ে সমাজ গঠনে মূল্যমান ভূমিকা পালন করবে। আজ পূর্ব বর্ধমান জেলার মেমারি ১ নম্বর ব্লকের দেবীপুর অঞ্চলে ২০২০ মাধ্যমিকে কৃতী ছাত্র চন্দন দত্তকে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পরিবহন দপ্তরের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী তথা দাদার অনুগামীদের পক্ষ হতে ফুলের তোড়া, মিষ্টি ও উত্তরীয় পরিয়ে সংবর্ধনা দিলেন মেমারি ১ নম্বর ব্লকের দাদার অনুগামীরা এবং বেশ কিছু বই ও তার প্রাইভেট টিউটরের দায়িত্ব নিয়েছেন মাননীয় শুভেন্দু অধিকারীর অনুগামী যারা “দাদার অনুগামী” বলে পরিচিত।
শুভেন্দু অধিকারী শুধুমাত্র একজন জনপ্রিয়তম রাজনীতিক বা মন্ত্রী নন, তিনি মানবিকতার পূজারী। লকডাউন জুড়ে আমফানের পরে তিনি রাজ্যজুড়ে লক্ষ লক্ষ দুঃস্থ মানুষের সেবা করেছেন। তিনি যেমন মঙ্গল চান তাঁর পরিবারের সাথে সাথে মঙ্গল শান্তি কামনা করেন রাজ্যের সাধারণ মানুষের বৃহত্তর পরিবারেরও। তাই আজ জেলায় জেলায় শুভেন্দুবাবুর অগণিত অনুগামী। আজ সেই রকমই বেশকিছু অনুগামী সুজন সর্দার, মাফিজ শেখ, তাপস ঘোষ সহ আরো অনেকে সম্মিলিত হয়ে চন্দন দত্তকে সংবর্ধনার সাথে সাথে পড়াশোনাকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ার আশ্বাস দেন। চন্দন দত্তের বাবা গোপাল দত্ত পেশায় তেল মিলের শ্রমিক ও মা সাধারণ গৃহবধু। অভাবের সংসারে ছেলের লেখাপড়া কিভাবে চালাবেন তা নিয়ে খুবই চিন্তিত ছিলেন, ঠিক সেই সময়ই মাননীয় মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী ও তার অনুগামীদের আশ্বাসে তারা কিছুটা হলেও চিন্তা মুক্ত হয়েছেন বলে জানান। অনুগামীদের পক্ষ হতে জানা যায় যে তারা বর্তমানে যে কোভিড চলছে তার জন্য যেমন বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান করবে এবং সাথে সাথে সাধারণ মানুষকে সাহায্য করতেও এগিয়ে আসবে।

%d bloggers like this: