October 20, 2020

যে সকল মানুষের ডিজিটাল রেশন কার্ড নেই তাদের সত্তর রেশন কার্ড করার জন্যে একটি বৈঠক

কাজল মিত্র

:- আসানসোল উষগ্রামের তৃণমূলের অগ্নিকন্যা ভবনে আসানসোল দুর্গাপুর পৌর কর্পোরেশন এবং পশ্চিম বর্ধমান জেলা কাউন্সিলের কর্মকর্তাদের নিয়ে একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। এই সভায় সম্বোধন করে আসানসোল পৌর কর্পোরেশনের মেয়র জিতেন্দ্র তিওয়ারি বলেছিলেন যে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সমস্ত অভাবী মানুষের জন্য রেশন কার্ড তৈরি করেছিলেন। সেই ক্রমে অনেকের কাছে এখনো ডিজিটাল রেশন কার্ড নেই। যার ফলে বহু মানুষ বঞ্চিত তাই জেলায় যাতে কোনও অভাবী মানুষ এই রেশন থেকে বঞ্চিত না হয় সে জন্য প্রত্যেককে ডিজিটাল রেশন কার্ড তৈরি করা উচিত। তিনি বলেন আগের সিপিআই (এম) এর সরকার অভাবী মানুষের রেশন কার্ড তৈরি না করে পুঁজিপতিদের রেশন কার্ড বানিয়েছেন, যার কারণেই আসল গরীব মানুষেরা রেশন থেকে বঞ্চিত রয়েছে । তিনি বলেন যে এই সব গরীব মানুষদের ডিজিটাল রেশন কার্ড করা উচিত এমনকি যাতে রেশন থেকে বঞ্চিত না হয় সেটা সকলের দেখা উচিত। সে জন্য প্রত্যেককে নিজ এলাকায় প্রতিটি মানুষের বাড়ি বাড়ি গিয়ে ডিজিটাল রেশন কার্ডের জন্য একটি তালিকা তৈরি করতে হবে। একই সাথে, তিনি বলেন যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশ দিয়েছেন যেসকল মানুষ এর পরিবারে একা বসবাস করে তাদের পাশে দাঁড়াতে হবে তাদের সমস্ত রকম সুবিধার ব্যাবস্থা করতে হবে ।যাতে সেই লোকেরা যদি কোনও সমস্যার মুখোমুখি হয় তবে তাদের সহায়তা করা আমাদের কর্তব্য ।এজন্য পৌর কর্পোরেশনের এমএমআইসি, বুরো চেয়ারম্যান, কাউন্সিলর, জেলা পরিষদ কর্মাধক্ষ, পঞ্চায়েত সমিতি প্রধান, গ্রাম পঞ্চায়েতের সদস্যদের ঘরে ঘরে লিস্ট তৈরি করতে হবে। ২ অক্টোবর থেকে একটি হোয়াটসঅ্যাপ নম্বর প্রকাশ করা হবে।যে নম্বরে বয়স্ক ব্যক্তিরা যোগাযোগ করে এবং তাদের সমস্যাগুলি বলতে সক্ষম হবেন। সভায় পশ্চিম বর্ধমান জেলা কাউন্সিলের সভাপতি সুভদ্রা বাউরি, দুর্গাপুর পৌর কর্পোরেশনের মেয়র দিলীপ আগুস্তি, আসানসোল পৌর কর্পোরেশনের চেয়ারম্যান অমরনাথ চ্যাটার্জী, উপমায়ার তাবাসসুম আরা, এমএমআইসি পূর্ণশীষ রায়, অভিজিৎ ঘটক, মীর হাশিম, শ্যাম সোরেণ, কর্মময়ক কালু বরণ মন্ডল সহ গ্রাম পঞ্চায়েত উপস্থিত ছিলেন। সদস্য, গ্রাম কমিটির প্রধান উপস্থিত ছিলেন।