January 28, 2021

মনীশ খুনের মামলায় সিআইডিতে আস্থা রাখলো কলকাতা হাইকোর্ট

মনীশ খুনের মামলায় সিআইডিতে আস্থা হাইকোর্টের

মোল্লা জসিমউদ্দিন (টিপু ) ,
ব্যারাকপুরের নিহত বিজেপি নেতা মনীশ শুক্ল খুনের মামলায় তদন্তকারী সংস্থা সিআইডিতে আপাতত আস্থা রাখলো কলকাতা হাইকোর্ট।শুক্রবার দুপুরে কলকাতা হাইকোর্ট বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে এই মামলার শুনানি চলে । সেখানে এই মামলার দায়িত্ব নেওয়া থেকে এখনও অবধি সিআইডির তদন্ত রিপোর্টে সন্তুষ্ট হাইকোর্ট। তবে আগামীদিনে সিআইডি তদন্তে ত্রুটি দেখা গেলে তখন সিবিআই তদন্তর দাবিতে আবেদন টি খতিয়ে দেখবে ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী ১০ নভেম্বর এই মামলার পরবর্তী শুনানি । তার আগে সিআইডি কে এই সময়কালের তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে হবে কলকাতা হাইকোর্ট কে। গত মঙ্গলবার    কলকাতা  হাইকোর্টের  বিচারপতি  সঞ্জীব  বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে ব্যারাকপুরে নিহত বিজেপি  নেতা মনীশ  শুক্ল খুনের মামলায়  শুনানি চলেছিল। সেখানে  ডিভিশন  বেঞ্চ  রাজ্যের কাছে শুক্রবারে মধ্যে মুখবন্ধ খামে রিপোর্ট  তলব  করেছিল। মনীশ  শুক্ল  খুনে তদন্তকারী  সংস্থা  সিআইডি কিভাবে  তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে, এখনও অবধি তদন্ত কতদূর  এগিয়েছে এইবিধ বিষয় গুলি জানতে চেয়েছিল  কলকাতা  হাইকোর্ট । গত ৪ অক্টোবর  ব্যারাকপুরে টিটাগড় থানার সামনে আততায়ীদের গুলিতে নিহত হয়েছিলেন স্থানীয় বিজেপি  নেতা  মনীশ  শুক্ল । এই খুনে নিহতের  বাবা ৭ জনের বিরুদ্ধে  এফআইআর দায়ের করেন। অভিযুক্তদের মধ্যে দুজন তৃনমূলের প্রাক্তন  পুর চেয়ারম্যান। স্থানীয়  থানার  পুলিশ  অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করেনি বলে অভিযোগ ৷ রাজ্য সরকার  অবশ্য  এই মামলার  তদন্ত সিআইডি কে দিয়েছে। সিআইডির তরফে তিনজন কে গ্রেপ্তার  করা  হয়েছে। তবে প্রকৃত খুনিদের ধরতে তৎপর  নয় বলে নিহতের পরিবারের অভিযোগ। সম্প্রতি রাজ্য বিজেপি নেত্রী  তথা কলকাতা  হাইকোর্টের  আইনজীবী  প্রিয়াঙ্কা  টিবরেওয়েল মনীশ  শুক্ল  খুনের  মামলায়  সিবিআই   তদন্ত  চেয়ে মামলা করেন। এই আইনজীবীর যুক্তি  – ‘নিহত  মনীশ  শুক্ল  একজন  রাজনৈতিক  ব্যক্তিত্বের পাশাপাশি  আইনজীবীও ছিলেন। তাই একজন  আইনজীবী  খুনে প্রকৃত খুনিদের গ্রেপ্তার  হওয়াটা আবশ্যিক। ঠিক এই দাবিতে সিবিআই তদন্ত চেয়ে  মামলা’ । এই মামলায় গত  মঙ্গলবার    কলকাতা হাইকোর্টের  বিচারপতি  সঞ্জীব  বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন  বেঞ্চে  মনীশ  শুক্ল  খুনে মামলায় তদন্তের গতিপ্রকৃতি  জানতে রিপোর্ট  তলব  করা  হয়েছিল  রাজ্যের কাছে। শুক্রবারের মধ্যেই মুখবন্ধ  খামে রিপোর্ট আকারে জমা দেওয়ার নির্দেশিকা ছিল । শুক্রবার অর্থাৎ আজ এই মামলায় সিআইডি তদন্ত রিপোর্ট দেখে সন্তুষ্ট হয় কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। তদন্ত চালিয়ে যাওয়ার আদেশনামা দেয় ডিভিশন বেঞ্চ। আগামী ১০ নভেম্বর এর মধ্যে এই সময়কালের তদন্ত প্রকৃতি ফের জানাতে বলা হয়েছে। তদন্তে ত্রুটি দেখা গেলে সিবিআই তদন্তর দাবিতে খতিয়ে দেখবে ডিভিশন বেঞ্চ বলে জানা গেছে।