March 2, 2021

মোল্লা জসিমউদ্দিন টিপু,


সম্প্রতি এলকেমিস্ট কর্তা কেডি সিং গ্রেপ্তার হয়েছেন ইডির হাতে।কয়েক শো কোটি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগে।এই মুহুর্তে তিনি ইডির হেফাজতে রয়েছেন  ঠিক এইরকম পরিস্থিতিতে এহেন চিটফান্ড কর্তা গ্রেপ্তার হওয়ায় খুশি তৃণমূল সমর্থিত রাজ্য সরকারী সংগঠনের সর্বোচ্চ নেতা মনোজ চক্রবর্তী।যিনি নিজে প্রতারিত হয়েছেন এই আর্থিক লগ্নি সংস্থার হাতে।যখন কেডি সিং তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ছিলেন। তখন স্থানীয় থানার পুলিশে লিখিত অভিযোগ দায়ের করতে গিয়ে নানান অভিজ্ঞতার শিকার হয়েছিলেন তিনি।একাধারে পুলিশি নিস্ক্রিয়তা এবং অপরদিকে দলের বড় অংশের বিরাগভাজন। সেই থেকে দলের মূল শাখা থেকে দূরত্বও তৈরি হয়েছিল।এখন ধৃত কেডি সিং তৃণমূলের সাংসদ নন।তাই দলের সাথে কোন যোগাযোগ নেই চিটফান্ড কর্তার,তা বোঝাচ্ছে দলীর শীর্ষ নেতৃত্ব। মনোজ চক্রবর্তীর দাবি – “শুধু সারদা নারদা নয় এলকেমিস্টদের মত বহু চিটফান্ডের দৌরাত্ম্যে হাজার হাজার আমানতকারী এবং এজেন্ট সর্বসান্ত হয়েছেন। সেইসাথে শতাধিক আমানতকারী ও এজেন্ট আত্মঘাতী হয়েছেন। তাই কেডি সিং দের মত অসত ব্যক্তিদের কঠোর শাস্তি দরকার”। জানা গেছে, ২০১৩ সালে  এবং ২০১৫ সালে তিনবছরের এমআইএস স্কিমে সর্বমোট ২ লক্ষ ১৫ হাজার টাকা রেখেছিলেন এলকেমিস্টতে। ২০১৫ সালের পর মেয়াদ শেষ হলেও কোন টাকা ফেরত পাননি।উলটে হুমকি পেয়েছেন। থানায় অভিযোগ জানাতে গেলে পুলিশি অসহযোগিতাও পান বলে অভিযোগ। তাও শাসক দলের সরকারি সংগঠনের সর্বোচ্চ নেতা হয়ে।কেননা তখন এলকেমিস্ট কর্তা তৃণমূলেরই রাজ্যসভার সাংসদ। গত ২৪ /০৫/১৭ তারিখে বহুকষ্টে তিনি নদীয়ার চাকদা থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন।সম্প্রতি ইডির হেফাজতে রয়েছেন কেডি সিং। তাতে খুশি মনোজ বাবু।তিনি চান ইডি এই চিটফান্ড কর্তার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে আমানতকারীদের নিজ নিজ অর্থ ফিরিয়ে দিক।